Saturday, September 18, 2021

ভাঙ্গুড়ায় স্কুলছাত্রকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা

 

পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলায় শাকিল হোসেন (১৮) নামে এক স্কুলছাত্রকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। 

শুক্রবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার ভাঙ্গাজোলা গ্রামে তাকে হত্যাচেষ্টা করা হয়।


শাকিলের মোবাইল চুরি করে ফেরত দেয়ার পরেও তাদের নাম এলাকায় বলে দেয়ায় তাকে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শাকিলের বাবা আলম হোসেন। 

এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলো-  সম্রাট (১৮) ও ইমন (১৯)। তারা একই গ্রামের নজরুল ইসলাম ও হেলাল উদ্দিনের ছেলে। 

আহত শাকিল স্থানীয় বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। তার বাড়ি একই এলাকায়।



শাকিলের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত সম্রাট শাকিলের ঘর থেকে মোবাইল চুরি করে নিয়ে যায়। বিষয়টি শাকিল জানতে পারলে শুক্রবার রাত ৮টার দিতে সম্রাট মোবাইল ফোনটি শাকিলকে ফেরত দেয় এবং এ বিষয়ে কাউকে কিছু জানাতে নিষেধ করে। 

কিন্তু শাকিল বিষয়টি পরিবারের লোকদের জানিয়ে দিলে তা গ্রামে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সম্রাট রাত ১১টার দিকে শাকিলকে ডেকে নিয়ে অপর দুই সহযোগী ইমন ও নাইমকে নিয়ে তাকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা করে। 

শাকিল কাটা গলা নিয়ে দৌড়ে বাড়ি গেলে সম্রাট, ইমন ও নাইম পালিয়ে যায়। ঘটনাটি শাকিলে প্রতিবেশী মোবাইল ফোনে থানায় জানায়।

পরে অভিযান চালিয়ে শনিবার ইমন ও সম্রাটকে ওই গ্রাম থেকে আটক করে। অপর অভিযুক্ত ইমন পলাতক রয়েছে।

ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক সোহেল রানা জানান, ঘটনার পর পরই মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানাতে পেরে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুজনকে আটক করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল যুগান্তরকে বলেন, অভিযুক্তরা বখাটে প্রকৃতির। বাবা মায়ের শাসন না থাকায় এলাকায় বেপরোয়াভাবে চলাফেরা করে।



শেয়ার করুন