Thursday, July 15, 2021

ফরিদপুরে করোনায় উপজেলা চেয়ারম্যান সুস্থ থাকলেও মেয়ে বাঁচলো না

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকার এভারকেয়ার (অ্যাপোলো) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন পাবনার ফরিদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক গোলাম হোসেন গোলাপের একমাত্র কন্যা নাসরিন সুলতানা শিমুল। তিনি গত এক সপ্তাহ ধরে চিকিৎসাধীন ছিলেন ওই হাসপাতালে। ধারণা করা হচ্ছে তিন সপ্তাহ ধরে করোনা আক্রান্ত বাবা গোলাম হোসেনের মাধ্যমেই করোনা আক্রান্ত হন শিমুল। তবে গোলাম হোসেন সুস্থ থাকলেও বৃহস্পতিবার সকালে শিমুল মারা যান। সূত্র জানায়, ফরিদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক গোলাম হোসেন গোলাপ তিন সপ্তাহ আগে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। এরপর তার একমাত্র কন্যা শিমুল বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। পরিবারের ধারণা, বাবার মাধ্যমেই মেয়ে শিমুল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। এরপর পরীক্ষায় শিমুল করোনা পজিটিভ হলে বাসায় থেকে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে গত সপ্তাহে তাকে ঢাকার এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি বৃহস্পতিবার সকালে মারা যান। শিমুল সিরাজগঞ্জের এক ধনাঢ্য তেল পাম্প ব্যবসায়ীর স্ত্রী। তার দুটি সন্তান রয়েছে। এদিকে করোনায় একমাত্র কন্যা মারা গেলেও বাবা গোলাম হোসেন সুস্থ রয়েছেন। তার শরীরে এখন আর তেমন করোনা উপসর্গ নেই। এতে সত্তরোর্ধ্ব পিতা করোনাতে সুস্থ থাকলেও ত্রিশোর্ধ কন্যা মারা যাওয়ায় স্থানীয় রাজনৈতিক ও সামাজিক অঙ্গনে হতাশার ছায়া পড়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম হোসেনের নাতি হুমায়ূন আহমেদ বলেন, সবার ধারণা আমার দাদার মাধ্যমেই শিমুল আন্টি করোনায় আক্রান্ত হন। কিন্তু দাদা ভালো থাকলেও আন্টি মারা গেল। এ নিয়ে পরিবারের মধ্যে শোকাবহ অবস্থা বিরাজ করছে। রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে সকলের কাছে আমাদের পরিবার দোয়া প্রত্যাশী।


শেয়ার করুন