Wednesday, January 13, 2021

ভাঙ্গুড়ায় কাউন্সিলর প্রার্থীর কর্মীদের সংঘর্ষে আহত ৩

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় পৌরসভা নির্বাচনের প্রচারণাকে কেন্দ্র করে বর্তমান সাবেক কাউন্সিলর প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে পৌরসভার নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মোজাম্মেল হক বিশু সাবেক কাউন্সিলর আসাদুল ইসলামের কর্মীদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। এতে সাবেক কাউন্সিলর আসাদুল ইসলামের তিন কর্মী আহত হন। আহতদের মধ্যে একজন ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানায় অভিযোগ করেছেন আসাদুল ইসলাম।

পুলিশ স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে পৌর শহরের নম্বর ওয়ার্ডের চৌবাড়ীয়া ভদ্রপাড়া মহল্লায় সাবেক কাউন্সিলর আসাদুল ইসলামের / জন কর্মী টহল দিচ্ছিল। এমন সময় বর্তমান কাউন্সিলর মোজাম্মেল হক বিশু তার ২০/২৫ জন কর্মী নিয়ে ওই এলাকায় প্রবেশ করে। নির্বাচনী বিধি লংঘন করে গভীর রাতে কেন প্রচারণা চালানো হচ্ছে নিয়ে দুই প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে  মোজাম্মেল হক বিশুর লোকজন আসাদুল ইসলামের লোকজনকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি শুরু করে। এতে আসাদুল ইসলামের কর্মী সুজন (৩৫) মজনু (৪৪) রোকন (৩০) আহত হয়। এনিয়ে ওই এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হলে পুলিশ গিয়ে উভয়পক্ষের লোকজনকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। পরে আসাদুল ইসলাম সহ অন্য কর্মীরা আহতদের নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। হাসপাতালে আহত সুজনকে ভর্তি রেখে অন্য দু'জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

সাবেক কাউন্সিলর আসাদুল ইসলাম অভিযোগ করেন, 'মোজাম্মেল হক বিশু প্রভাব খাটিয়ে তার প্রচারণায় বাধা সৃষ্টি করছেন। এছাড়া তাঁর নিজ এলাকায় আমার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে দিচ্ছেন। বিষয়ে নিয়ে আমি নির্বাচন অফিসে অভিযোগ করেছি। এর জের ধরে তার নেতৃত্বে রাতে আমার কর্মীদেরকে মারধর করা হয়।'

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে বর্তমান কাউন্সিলর মোজাম্মেল হক বিশু বলেন, কোনো প্রতিপক্ষ প্রার্থীর পোস্টার ছিড়া কিংবা প্রচারণায় বাধা দেওয়া হয়নি। গভীর রাতে এলাকায় প্রচারণা চালানোর অভিযোগে আমার কর্মীরা আসাদুলের কর্মীদেরকে তাড়িয়ে দেয়। নিয়ে অহেতুক গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের ডিউটি অফিসার কামরুল ইসলাম বলেন, গভীর রাতে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি হয়।খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। তবে পুলিশ পৌঁছানোর আগেই কিল ঘুষিতে এক প্রার্থীর একজন কর্মী আহত হন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই এলাকা সহ সকল নির্বাচনী এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রাখতে পুলিশ সব সময় নজর রাখছে।


শেয়ার করুন