Sunday, May 24, 2020

পাবনায় ফরিদপুরে সরকারি চাল ক্রয়ের অপরাধে ২০ হাজার টাকা জরিমানা

অনলাইন ডেস্ক
পাবনার ফরিদপুরে সরকারি কর্মসূচির চাল ক্রয় করার অপরাধে অভিযুক্ত আফসার আলীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার গভীর রাতে ফরিদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এই অর্থ জরিমানা করেন। এর আগে অভিযুক্ত আফসার আলীর বাড়ি থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  ৪০০ কেজি (১৬ বস্তা) সরকারি চাল উদ্ধার করেন। আফসার আলীর বাড়ি উপজেলার এরশাদনগর গ্রামে।
সূত্র জানায়, গতকাল শনিবার ফরিদপুর উপজেলার বৃলাহিড়ীবাড়ি ইউনিয়নের এরশাদনগর বাজারের নৌঘাটে সরকারি কর্মসূচির চাল ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছিল। এ সময় আফসার আলী ১৬ বস্তা চাল কেনেন কবুতরকে খাওয়ানোর জন্য। চাল বাড়িতে নিয়ে তিনি বস্তা পরিবর্তন করেন। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অভিযান চালিয়ে আফসার আলী বাড়ি থেকে সরকারি কর্মসূচির খালি বস্তাসহ আনুমানিক ৪০০ কেজি চাল উদ্ধার করেন। তবে অভিযানের সময় আফসার আলী বাড়িতে না থাকায় তার মেয়ে আফিয়া সুলতানা আঁখিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায় উপজেলা প্রশাসন। আঁখির শ্বশুরবাড়ি ভাঙ্গুড়া উপজেলার বেতুয়ান গ্রামে। সে মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী। আঁখির দেওয়া তথ্যমতে উপজেলা প্রশাসন অভিযান চালিয়ে তার বাবা আফসার আলীকে রাতেই আটক করেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আফসার আলীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ফরিদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  আহম্মদ আলী ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন।
এদিকে অভিযুক্ত পরিবারের ভাষ্যমতে, উদ্ধারকৃত চাল পার্শ্ববর্তী ভাঙ্গুড়া উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়ন পরিষদের। সেখানকার একটি চক্রের মাধ্যমে তারা এই চাল ক্রয় করেছেন। তাই প্রশাসন উদ্ধারকৃত এই চালের সঠিক উৎস খুঁজতে অনুসন্ধান চালাবে বলে জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে ফরিদপুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা আহম্মদ আলী বলেন, শনিবার বিকেলে আফসার আলীর বাড়ি থেকে আনুমানিক ৪০০ কেজি চাল উদ্ধার করা হয়। এরপরে তার মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা হয়। পরে অভিযান চালিয়ে আফসার আলীকে আটক করে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। আফসার আলী ও তার মেয়ের দেওয়া তথ্যমতে এই চাল পার্শ্ববর্তী ভাঙ্গুড়া উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়ন পরিষদের। তাই চালের সঠিক উৎসের ব্যাপারে নিশ্চিত হতে অধিকতর তদন্ত করতে জেলা প্রশাসনকে অনুরোধ জানানো হবে এবং ভাঙ্গুড়া উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতা চাওয়া হবে।
ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশরাফুজ্জামান বলেন, জেলা প্রশাসন উদ্ধারকৃত চালের তথ্য অনুসন্ধান করতে লিখিত নির্দেশ দিলে বিষয়টি তদন্ত করা হবে। 

শেয়ার করুন