Thursday, May 21, 2020

ফরিদপুরে প্রণোদনার অর্থে চেয়ারম্যানের স্বজনপ্রীতি

(ফরিদপুর প্রতিনিধি) 
করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি প্রণোদনার সুবিধাভোগীদের তালিকা তৈরিতে স্বজনপ্রীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। পাবনার ফরিদপুর উপজেলার ডেমড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমানের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ। তিনি হতদরিদ্রদের নাম বাদ দিয়ে জন্মস্থান কালিয়ানি গ্রামের আত্মীয়-স্বজন ও নিকটতম লোকদের তালিকাভুক্ত করেছেন। এর প্রতিকার চেয়ে গতকাল বুধবার ১ নম্বর ওয়ার্ডের সুবিধাবঞ্চিত ২৫ জন হতদরিদ্র উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছে।
লিখিত অভিযোগ ও গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, করোনা পরিস্থিতিতে সরকার কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্র মানুষের জন্য প্রণোদনার অর্থ ঘোষণা করে। এতে তালিকাভুক্ত প্রতিটি পরিবার নগদ আড়াই হাজার টাকা মোবাইল অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে পাবে।
প্রণোদনার অর্থপ্রাপ্তির তালিকা তৈরিতে উপজেলার প্রতিটি গ্রামে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দেয় উপজেলা প্রশাসন। এর পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলার ডেমড়া ইউনিয়নে ৯টি ওয়ার্ডের ৫৪৮টি পরিবার এই সুবিধার আওতায় পড়ে। চলতি মাসের ৮ তারিখ থেকে তালিকা তৈরি ও যাচাই-বছাই প্রক্রিয়া শুরু হয়। এরপর ইউনিয়নের জনসংখ্যার দিক থেকে সবচেয়ে বড় ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক গ্রামবাসীর সঙ্গে বসে ৯০ জনের একটি তালিকা তৈরি করে চেয়ারম্যানের কাছে পেশ করেন। কিন্তু চেয়ারম্যান গোপনে ওই তালিকার ৪০ জনের নাম রেখে বাকিদের নাম কেটে দেন। একইভাবে অন্যান্য ওয়ার্ডের সুবিধাবঞ্চিতদেরও তালিকা থেকে নাম কেটে দিয়েছেন মাহফুজুর রহমান। তিনি নিজ গ্রামের আত্মীয়-স্বজনসহ নিকটতম ব্যক্তিদের তালিকাভুক্ত করে উপজেলা প্রশাসনের কাছে জমা দেন। পরে বিষয়টি ইউপি সদস্য ও গ্রামবাসী জানতে পারে।
ফরিদপুরের ইউএনও আহম্মদ আলী বলেন, ‘অভিযোগ পাওয়ার পরই বিষয়টি তদন্ত করতে একজন কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে।’

শেয়ার করুন