Previous
Next

সর্বশেষ

Tuesday, September 21, 2021

চিকিৎসা না পেয়ে শুকিয়ে কাঠ হয়ে যাচ্ছে ভাঙ্গুড়ার নুপুর

চিকিৎসা না পেয়ে শুকিয়ে কাঠ হয়ে যাচ্ছে ভাঙ্গুড়ার নুপুর

মাস আগেও নাচ-গান ও খেলাধুলায় সবাইকে মাতিয়ে রাখতো পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী নুপুর (১০)। অর্থের অভাব থাকলেও কাঠমিস্ত্রি বাবার পরিবারে আনন্দের কমতি ছিল না। কিন্তু হঠাৎ করেই নুপুর মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়ায় পরিবারে নেমে এসেছে বিষাদের ছায়া। গত দুই মাস ধরে নুপুর শয্যাশায়ী হয়ে তীব্র শরীরের যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে। অর্থাভাবে চিকিৎসা দিতে না পেরে তীব্র মনোকষ্টে ভুগছেন নুপুরের দাদা-দাদি ও মা-বাবা। এমনকি চিকিৎসকের নির্দেশে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে না পেরে নুপুরের রোগ শনাক্ত করা যায়নি। এ অবস্থায় পরিবারটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

নুপুর পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের কাঠমিস্ত্রি রতন আলীর মেয়ে ও স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। নুপুরের বাবা রতন আলীর সাথে যোগাযোগের মোবাইল নাম্বার ০১৭৩৯৪৪৯২৩৪।


সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিছানায় শুয়ে তীব্র যন্ত্রণায় কান্নাকাটি করছে নুপুর। পাশে মা মেয়ের শরীরে হাত বুলিয়ে শান্ত করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু কিছুতেই নুপুরের যন্ত্রণা কমছে না। বারান্দায় বসে নুপুরের দাদি গুমড়ে গুমড়ে কান্না করছেন। জুলাই মাসের প্রথম দিকে অসুস্থ হয়ে পড়া নুপুরকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে দুই সপ্তাহ রেখে রোগ নির্ণয়ের জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষায় প্রায় ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। যার বেশিরভাগই ধারদেনা করতে হয়েছে পরিবারকে। প্রাথমিকভাবে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডাক্তার মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন নুপুরের রক্তে ইনফেকশন বলে ধারণা করেছে। তবে নিশ্চিত হতে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা দিয়েছেন ওই চিকিৎসক। কিন্তু এই পরীক্ষা-নিরীক্ষা করারর জন্য ১৫ হাজার টাকা রতন কোনোভাবেই জোগাড় করতে পারছেন না। এ অবস্থায় নিরুপায় হয়ে নুপুরকে স্থানীয় কবিরাজি চিকিৎসা দিচ্ছেন পরিবার। তবে নুপুরের শারীরিক অবস্থার কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না। দিনদিন শুকিয়ে আরো মুমূর্ষু হয়ে পড়ছে নুপুর।


নুপুরের দাদা নজরুল ইসলাম বলেন, বসতভিটা ছাড়া তাদের কোনো জমিজমা নেই। অসুস্থতা ও বয়সের ভারে তিনিও আর কাজ করতে পারেন না। তাই কাঠমিস্ত্রির কাজ করে যা আয় হয় তাই দিয়ে ছয় জনের সংসার চালাতে হয় ছেলে রতনকে। আত্মীয়স্বজনের কাছে ধারদেনা করে টাকা নিয়ে এতদিন নাতনিকে ডাক্তার দেখানো হয়েছে। কিন্তু এখন আর কেউ ধার দিচ্ছে না। গ্রামের মানুষের কাছে হাত পেতে কিছু টাকা সংগ্রহ করা হয়েছে। তবে সে টাকায় রাজশাহী গিয়ে ডাক্তার দেখানো সম্ভব হচ্ছে না।


পাথরঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা লক্ষ্মী বিশ্বাস বলেন, নুপুর নাচে খুবই পারদর্শী ছিল। বিদ্যালয়ের হয়ে সে উপজেলা পর্যায়ে নাচে অংশগ্রহণ করেছে। পড়াশোনাতেও সে মেধাবী ছিল। শিশুটির এমন অবস্থায় শিক্ষকরা মর্মাহত। তাকে আর্থিক সহযোগিতা করার জন্য শিক্ষকদের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। তবে শারীরিক অবস্থার বিবেচনায় নুপুরের চিকিৎসায় অনেক টাকার প্রয়োজন। যা এককভাবে কারোরই বহন করা সম্ভব না।


ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশরাফুজজমান বলেন, উপজেলা প্রশাসন থেকে শিশুটির চিকিৎসায় সাধ্যমত আর্থিক সহযোগিতা করা হবে।


Saturday, September 18, 2021

ভাঙ্গুড়ায় স্কুলছাত্রকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা

ভাঙ্গুড়ায় স্কুলছাত্রকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা

 

পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলায় শাকিল হোসেন (১৮) নামে এক স্কুলছাত্রকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। 

শুক্রবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার ভাঙ্গাজোলা গ্রামে তাকে হত্যাচেষ্টা করা হয়।


শাকিলের মোবাইল চুরি করে ফেরত দেয়ার পরেও তাদের নাম এলাকায় বলে দেয়ায় তাকে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শাকিলের বাবা আলম হোসেন। 

এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলো-  সম্রাট (১৮) ও ইমন (১৯)। তারা একই গ্রামের নজরুল ইসলাম ও হেলাল উদ্দিনের ছেলে। 

আহত শাকিল স্থানীয় বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। তার বাড়ি একই এলাকায়।



শাকিলের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত সম্রাট শাকিলের ঘর থেকে মোবাইল চুরি করে নিয়ে যায়। বিষয়টি শাকিল জানতে পারলে শুক্রবার রাত ৮টার দিতে সম্রাট মোবাইল ফোনটি শাকিলকে ফেরত দেয় এবং এ বিষয়ে কাউকে কিছু জানাতে নিষেধ করে। 

কিন্তু শাকিল বিষয়টি পরিবারের লোকদের জানিয়ে দিলে তা গ্রামে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সম্রাট রাত ১১টার দিকে শাকিলকে ডেকে নিয়ে অপর দুই সহযোগী ইমন ও নাইমকে নিয়ে তাকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা করে। 

শাকিল কাটা গলা নিয়ে দৌড়ে বাড়ি গেলে সম্রাট, ইমন ও নাইম পালিয়ে যায়। ঘটনাটি শাকিলে প্রতিবেশী মোবাইল ফোনে থানায় জানায়।

পরে অভিযান চালিয়ে শনিবার ইমন ও সম্রাটকে ওই গ্রাম থেকে আটক করে। অপর অভিযুক্ত ইমন পলাতক রয়েছে।

ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক সোহেল রানা জানান, ঘটনার পর পরই মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানাতে পেরে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুজনকে আটক করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল যুগান্তরকে বলেন, অভিযুক্তরা বখাটে প্রকৃতির। বাবা মায়ের শাসন না থাকায় এলাকায় বেপরোয়াভাবে চলাফেরা করে।


Tuesday, September 14, 2021

ভাঙ্গুড়ায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান মনোনয়নপ্রত্যাশীকে পিটিয়ে জখম

ভাঙ্গুড়ায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান মনোনয়নপ্রত্যাশীকে পিটিয়ে জখম

 

আহত মাসুদ রানা।

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে আগামী দিলপাশার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী মাসুদ রানাকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। আজ সোমবার রাত নয়টার দিকে উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের পুঁইবিল বাজারে গণসংযোগের সময় এই ঘটনা ঘটে। আহত মাসুদ রানা ওই ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামের বাসিন্দা ও ভাঙ্গুড়া বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দিলপাশার ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামে রবিবার নৌকা বাইচকে কেন্দ্র করে মাসুদ রানার লোকজনের সঙ্গে স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার সরদারের ছেলে লিখন বাবুর লোকজনের সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়। এ অবস্থায় ক্ষিপ্ত হয়ে গ্রামের বুলু সরদার, আসাদ সরদার ও আবু হোসেন সহ কয়েকজন যুবক সোমবার রাতে পুঁইবিল বাজারে মাসুদ রানার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় মাসুদ রানা ভাঙ্গুড়া থেকে ফিরে পুঁইবিল বাজারে গণসংযোগ করছিল। মাগুরা গ্রামের ইউপি সদস্য আনোয়ার সরদারের ছেলে লিখন বাবুর নির্দেশে এই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ।


অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে ইউপি সদস্য আনোয়ার সরদারের মোবাইল ফোনে কল করলে বন্ধ পাওয়া যায়।


তবে মারধরের বিষয়টি নিশ্চিত করে মাসুদ রানার ছোট ভাই সাগর জানান, চিকিৎসা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় বিস্তারিত পরে কথা বলবেন তিনি।


এ বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফয়সাল বিন আহসান জানান, এলাকাবাসীর মাধ্যমে বিষয়টি জেনে বিট পুলিশিং কর্মকর্তাকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। তিনি ফিরলে বিস্তারিত জেনে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

Sunday, September 12, 2021

৫৪৩ দিন পর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খুলল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

৫৪৩ দিন পর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খুলল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

 

ভাঙ্গুড়া ( পাবনা ) প্রতিনিধি : 

করোনায় বন্ধ থাকার পর আগামি ১২ সেপ্টেম্বর আজ  খুললেন  স্কুল-কলেজ । দীর্ঘদিন পর স্কুল - কলেজ খোলার পড়ে আনন্দিত পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার শিক্ষার্থী- অভিভাবকরা। তাই স্বাস্থ্যবিধির কথা মাথায় রেখে ইতিমধ্যে উপজেলার সকল ধরনের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের‌ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় শ্রেণিকক্ষ পাঠদানের জন্য উপযোগি করা হয়েছে। তবে বন্যার কারণে পাঠদানের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে উপজেলার ১২ টি বিদ্যালয় । 



সরেজমিন উপজেলার কয়েকটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, আঙিনা পরিস্কার -পরিচ্ছন্নতাসহ পাঠদানের উপযোগি করে রাখা হয়েছে বিদ্যালয়গুলো। শিক্ষক-কর্মচারীরা অফিস করছেন।  স্বাস্থ্যবিধি মেনে পাঠদানের জন্য মাস্ক, হ্যান্ডস্যানিটাইজারসহ নানা উপকরণ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। 


ময়দানদিঘী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ শামছুজ্জামান  জানান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের জন্য মাস্ক, হ্যান্ডস্যানিটাইজার, জীবাণুনাশক স্প্রে, তাপমাত্রা মাপক যন্ত্রসহ প্রয়োজনীয় উপকরণ কেনা হয়েছে এবং সকল ছাত্র-ছাত্রীদের দেওয়া হচ্ছে। তবে দুধবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নাসির হোসেন, চিন্তাত  তাঁর বিদ্যালয় আঙিনায় বন্যার পানি প্রবেশ করায় তিনি চিন্তিত। 

ময়দানদিঘী হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান বলেন, দীর্ঘদিন পর স্কুল চত্বর আবার শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হবে তাই পাঠদানের জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। 


পরমানন্দপুর  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিক , মোঃ নুরুজ্জামান সবুজ বলেন, সরকারি নির্দেশ পাবার পরেই তাঁরা স্কুলের খুলেছেন ।


অভিভাবক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলাম ফরিদ  বলেন, ‘মহামারি করোনায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সন্তানের ভবিষ্যত নিয়ে অন্য সবার মতো নিজেও শংকিত ছিলাম। এখন স্কুল-কলেজ খোলার পর স্বস্তি পাচ্ছি।’ 

চন্ডিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী নাজমুস সাকিব বলেন, অনেকদিন স্কুলে যেতে না পারায় খুব খারাপ লেগেছে। এখন ১২ তারিখে স্কুল খোলার পর  আমার খুব আনন্দ লাগছে ।’ 


উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিত করে ১২ সেপ্টেম্বর থেকে পাঠদানের লক্ষে সকলপ্রস্তুতি সম্পন্ন করতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নির্দেশনা দেওয়া আছে। আর বন্যার কারণে উপজেলার ৯৯ টি স্কুলের মধ্যে ঝুকিপূর্ণ ১২টি স্কুলের বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। 

Friday, September 10, 2021

ভাঙ্গুড়ায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন

ভাঙ্গুড়ায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন

 


ভাঙ্গুড়া ( পাবনা ) প্রতিনিধি : পাবনার ভাঙ্গুড়ায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ব্লাড ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা  ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে ।  আজ শুক্রবার সকাল ১০ টায় উপজেলার নৌবাড়িয়া গ্রামে দিনব্যাপি এ স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করা হয়। 




বিশিষ্ট শিল্পপতি রাজিউল হাসান বাবু ও  বড়াল ক্লিনিকের সার্বিক সহযোগিতায় স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন, উপজেলা ব্লাড ফাউন্ডেশনের সভাপতি সায়েক মো. আবু সায়েম সরকার।  


এসময়  বড়াল ক্লিনিকের পরিচালক আব্দুল কাদের, বিবিএফ এর ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন সভাপতি নেহাজ অভি ডাবলু,

হুমায়ুন আহমেদ, নাজমুল সরকার, সালাউদ্দিন সবুজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবার মধ্যে রয়েছে  ব্লাড গ্রুপ নির্ণয়, ওজন ও উচ্চতা নির্ণয় এবং ব্লাড পেসার পরিমাপ।

ভাঙ্গুড়ায় পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু

ভাঙ্গুড়ায় পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু



ভাঙ্গুড়া ( পাবনা ) প্রতিনিধি : 

 পাবনার ভাঙ্গুড়ায় অটোভ্যান গাড়ি চালাতে গিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে ছিটকে পানিতে পড়ে গিয়ে মাছুম হোসেন মোল্লা (১২) নামের এক শিশু ভ্যান চালকের মৃত্যু হয়েছে। 



আজ শুক্রবার বেলা ১২ টার দিকে উপজেলার নৌবাড়িয়া গ্রামে এঘটনাটি ঘটে। সে উপজেলার অষ্টমনিষা ইউনিয়নের বড় বিশাকোল গ্রামের চা বিক্রেতা বাবলু মোল্লার সন্তান। 


প্রত্যক্ষদর্শী ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ বেলা ১২ টার দিকে উপজেলার নৌবাড়িয়া ভ্যানস্ট্যান্ডে অটোভ্যানের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার ধারের গাছের সাথে সজোরে ধাক্কা খায় চালক মাসুম । মুহুর্তের মধ্যেই গাড়িসহ ছিটকে পাশের ডোবার পানিতে পড়ে যায় সে । ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজন তৎক্ষনাৎ তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। 


থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফয়সাল বিন আহসান বলেন, ভ্যান চালাতে গিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে পানিতে পড়ে ওই শিশুটি মারা গেছে। 

আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতির দিকে এগোচ্ছে আওয়ামী লীগ

আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতির দিকে এগোচ্ছে আওয়ামী লীগ

 

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ। এরই মধ্যে  নির্বাচনী  ইশতেহার আপডেট করতে উপকমিটিগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দলটির বিভিন্ন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দলের কার্যনির্বাহী সংসদের সভায়ও বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সভা শেষে সাংবাদিকদের বিষয়টি অবহিত করেন। গণভবনে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকাল প্রায় সাড়ে তিনটা পর্যন্ত বৈঠক হয়েছে। এতে মূলত ফোকাসটা ছিল সাংগঠনিক বিষয় এবং পরবর্তী নির্বাচনের প্রস্তুতির বিষয়। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, পরবর্তী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতির লক্ষ্যে আমাদের অর্থনৈতিক নীতিমালা প্রণয়ন এবং সেমিনারের মাধ্যমে পরবর্তী নির্বাচনী মেনিফেস্টোতে অন্তর্ভুক্তযোগ্য শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের মতো বিভিন্ন বিষয়ের সুপারিশ বা আপডেট তৈরির জন্য উপকমিটিগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বৈঠকে উপকমিটির কয়েকজন সদস্যসচিবের বক্তব্যও শুনেছেন দলের সভাপতি।

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, বৈঠকে আটজন সাংগঠনিক সম্পাদক তাদের লিখিত রিপোর্ট পেশ করেছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রামের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন না, তার পক্ষে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ রিপোর্ট উপস্থাপন করেছেন। তাদের এলাকার ইউনিয়ন ওয়ার্ড পর্যন্ত রিপোর্ট আমাদের নেত্রীর সামনে উপস্থাপন করেছেন এবং জানিয়েছেন প্রকৃত অবস্থা। যেখানে যে যে সমাধান করা দরকার, সেগুলোর বিষয়ে তিনি নির্দেশনা দিয়েছেন। কিছু কিছু ছোটখাটো কলহ-বিবাদ আছে, সেগুলোও সমাধান করার নির্দেশ তিনি দিয়েছেন। 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, পাবনা পৌরসভা নির্বাচন উপলক্ষে ওখানে অনেকে বিদ্রোহ করেছিল। তারা ক্ষমা চেয়ে চিঠি পাঠিয়েছে নেত্রী বরাবর। তাদেরকে ক্ষমা করে দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি আবার এটাও বলেছেন, যারা দলের শৃঙ্খলার বিরুদ্ধে কাজ করছে, বিভিন্ন জায়গায় তাদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিকভাবে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে, ছাড় দেওয়া যাবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আরেকটা বিষয় নেত্রী বলেছেন, অপপ্রচার এবং চক্রান্ত চলছে সরকারের বিরুদ্ধে। যতই নির্বাচন ঘনিয়ে আসছে, ততই অপপ্রচারের মাত্রা বাড়ছে। এসব অপপ্রচারের জবাব দিতে হবে, চক্রান্তমূলক তৎপরতা সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ করতে হবে। 

 
বৈঠকে আওয়ামী লীগের যেসব সহযোগী সংগঠন এবং নেতারা সারা দেশে ঘুরে ঘুরে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন, সে জন্য প্রধানমন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এবং সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বলেও জনান তিনি।