Previous
Next

সর্বশেষ

Saturday, April 10, 2021

ভাঙ্গুড়ায় শিশুর আত্মহত্যা । ভাঙ্গুড়ার আলো

ভাঙ্গুড়ায় শিশুর আত্মহত্যা । ভাঙ্গুড়ার আলো

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় উর্মি খাতুন নামে ১০ বছরের এক শিশু গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে। উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের দয়ারামপুর গ্রামে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত উর্মি ওই গ্রামের আব্দুল খালেকের কন্যা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। তবে কেন মানসিক প্রতিবন্ধী শিশুটি এমন কাজ করলো তা কেউই বলতে পারছেনা বাড়ির সদস্যরা।


স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জন্মের পর থেকেই উর্মি মানসিক প্রতিবন্ধী। উর্মির বাবা আব্দুল খালেক ঢাকার একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। তাই মাকেই উর্মির দেখাশোনা করতে হয়। খাবার খাওয়ানো ও পোশাক পরানো সবকিছুই মাকে করে দিতে হয়। অনেক সময় কথা না শোনার কারণে সামান্য শাসন করতে হয় উর্মিকে। তবে কেউ তাকে কখনো অনাদর করেনি। এ অবস্থায় শুক্রবার সন্ধ্যায় বৃষ্টি শুরু হলে মা উর্মিকে ঘরে রেখে উঠানের গরুর গোবরের ঘুঁটে তুলতে যায়। পরে ঘরে ফিরে এসে দেখে উর্মি ঘরের আড়ায় ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে ঝুলে আছে। পরে শিশুটিকে নামিয়ে স্থানীয় চিকিৎসক ডাকলে তিনি মৃত ঘোষণা করেন।


এরপর স্থানীয় ইউপি সদস্য কফিল উদ্দিন ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে রাত ৯ টার দিকে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। আজ শনিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য শিশুটির মরদেহ পাবনা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।


ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের ডিউটি অফিসার এসআই মুরাদ হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি আত্মহত্যা মনে হচ্ছে। তাই থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। তদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরে প্রকৃত মৃত্যুর বিষয়টি জানা যাবে।

Thursday, April 8, 2021

ভাঙ্গুড়ার ৫ মণ গরুর মাংস মাটিচাপা দিলেন এসিল্যান্ড

ভাঙ্গুড়ার ৫ মণ গরুর মাংস মাটিচাপা দিলেন এসিল্যান্ড

হঠাৎ করেই খামারে ৬ ছয় মণ ওজনের একটি ষাঁড় অসুস্থ হয়ে পড়ে। কিছুক্ষণের মধ্যেই গরুটির নড়াচড়াও বন্ধ হয়ে যায়। তাই মৃত ভেবে কাউকে কিছু না জানিয়ে কসাই বাচ্চু মিয়া নিজেই গরুটি জবাই করেন। পরে গোপনে বস্তায় ভরে গরুর কিছু অংশ বিক্রির জন্য বাহিরে পাঠান। অবশিষ্ট মাংস তৈরির প্রক্রিয়া করা হচ্ছিল। বিষয়টি প্রতিবেশীরা জানতে পারলে স্থানীয় কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মীকে জানান। এরপর গণমাধ্যমকর্মীদের মাধ্যমে উপজেলা ও পৌর প্রশাসন ঘটনা সম্পর্কে অবগত হন। পরে গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে হাজির হন উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাওসার হাবিব ও ভাঙ্গুড়া পৌরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম। ঘটনার সত্যতা পেয়ে তাৎক্ষণিক অবশিষ্ট প্রায় ৫ মণ মাংস মাটিচাপা দিয়ে কসাই বাচ্চু মিয়াকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ওই দুই কর্মকর্তা। 

তবে রাতের আঁধারে বাচ্চু মিয়া মাটিতে পুঁতে রাখা গরুর মাংস তুলে নিয়ে আবারও বাজারে বিক্রি করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। তবে বাচ্চু মিয়া তা অস্বীকার করেছেন। অভিযুক্ত কসাই বাচ্চু মিয়া পাবনার ভাঙ্গুড়া পৌরশহরের হারোপাড়া মহল্লার বাসিন্দা। শহরের বড়াল ব্রিজ রেল স্টেশনের পাশে তার মাংসের দোকান রয়েছে।
অনুসন্ধানে জানা যায়, ভাঙ্গুড়া পৌরশহরের হারোপাড়া মহল্লায় শতাধিক গরুর খামার রয়েছে। অর্ধেক খামারে স্থানীয় বাজারের মাংসের চাহিদা পূরণের জন্য ষাঁড় ও বলদ জাতীয় গরু পালন করা হয়। এসব খামারের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত রয়েছেন স্থানীয় দশ-বারোজন কসাই। অভিযোগ রয়েছে, কয়েকজন কসাই উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে অসুস্থ ও অর্ধমৃত গরু অল্প দামে কিনে নিয়ে এসে ভাঙ্গুড়াসহ আশেপাশের উপজেলায় মাংসের দোকানে বিক্রি করেন। বছরের এই সময়টিতে হিট স্ট্রোকের কারণে প্রায়ই অসুস্থ হয়ে গরু মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটছে। কিন্তু কসাইরা লোকচক্ষুর আড়ালে এসব গরু জবাই করে বিক্রি করেন। অথচ নিয়ম রয়েছে সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস অথবা পৌরসভার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার উপস্থিতিতে এসব গরু জবাই করতে হবে। কিন্তু কেউ-ই এই নিয়মের তোয়াক্কা করছেন না। এতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উদাসীনতা রয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। একারণে বাচ্চু মিয়া সহ কয়েকজন কসাই প্রায়ই এ ধরনের অপকর্ম করে ধরা-ছোঁয়ার বাইরে থাকেন। একমাস আগে একই মহল্লার শহিদুল ইসলাম নামে আরেক কসাই অসুস্থ গরু জবাই করে মাংস বিক্রি করেছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছিল।
অভিযোগের বিষয়ে কসাই বাচ্চু মিয়া বলেন, অসুস্থ গরু জবাই করে নিজেরাই খাই। বাড়ির প্রতিবেশী ও আত্মীয়স্বজনের কাছে পাঠাই। এগুলো মানুষের কাছে বিক্রি করি না। তাই কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে জবাই করি। এদিনও তাই করেছিলাম। কিন্তু এলাকাবাসীর অভিযোগের কারণে জরিমানা দিতে হয়েছে। মাংসের ব্যবসা করলে এরকম একটু হয়।

ভাঙ্গুড়া পৌরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম বলেন, পৌরসভাকে অবগত করে স্থানীয় কসাইরা গরু জবাই করে বাজারে বিক্রি করবেন বলে নির্দেশনা দেওয়া আছে। কিন্তু তারা সেটা করেন না। উপরন্তু তারা গোপনে জবাই করে আশেপাশের উপজেলায় মাংস ব্যবসায়ীদের কাছে পাঠিয়ে দেন। সম্প্রতি এমন একাধিক ঘটনা ঘটায় বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখে নিয়মিত অভিযান চালানো হবে।

Wednesday, April 7, 2021

ভাঙ্গুড়ায় ইউনিয়ন জামায়াত আমিরের 'অবসরে' সংবর্ধনা দিলেন আ. লীগ সম্পাদক!

ভাঙ্গুড়ায় ইউনিয়ন জামায়াত আমিরের 'অবসরে' সংবর্ধনা দিলেন আ. লীগ সম্পাদক!

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ইউনিয়ন জামায়াতের আমিরকে আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যানের দেওয়া সংবর্ধনা নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের সাবেক জামায়াতের আমির ও ইউনিয়নের পাঁচ বেতুয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমানকে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে সংবর্ধনা দেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার ঘোষ। 

জানা যায়, উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের পাঁচ বেতুয়ান গ্রামের ফজলুর রহমান গ্রামের বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরি শুরু করেন। চাকরি চলাকালীন তিনি দিলপাশার ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে ২০১৪ সালে দেশের সকল বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হলে তিনি দল থেকে অব্যাহতি নেন। তবে এরপরেও এলাকায় জামায়াতকে সুসংগঠিত করার কাজ চালিয়ে যান ফজলুর রহমান। এরপর থেকে তিনি সুবিধা আদায়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলেন। একপর্যায়ে এ মাসের প্রথম দিকে তিনি চাকরি থেকে অবসরে যান। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার বিকেলে বিদ্যালয়ে ফজলুর রহমানকে সংবর্ধনা দেন ইউপি চেয়ারম্যান অশোক কুমার ঘোষ। এ সময় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সাত্তার উপস্থিত ছিলেন। 

এদিকে সংবর্ধনা দেওয়ার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এলাকার আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা তুমুল সমালোচনা শুরু করেন।

পাঁচ বেতুয়ান ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি রশিদ সরকার বলেন, যিনি এখনো সরকার এবং আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কথা বলেন, সরকারের উন্নয়নকে মেনে নিতে পারেন না, তাকে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানের সংবর্ধনা দেওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীরা অত্যন্ত লজ্জিত হয়েছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান অশোক কুমার ঘোষ বলেন, ফজলুর রহমান অনেক আগে জামায়াত করতেন। এখন তিনি নিষ্ক্রিয় এবং ইউনিয়নে কোনো জামায়াতের নেতাকর্মী নাই। তাই প্রধান শিক্ষক হিসেবে তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়া দোষের কিছু মনে করি না।

দিলপাশার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম বলেন, সামনে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। তাই সকলকে নিজের পক্ষে নিতে জামায়াত-বিএনপি নিয়ে আর ভেদাভেদ দেখছে না অশোক কুমার ঘোষ।

Monday, April 5, 2021

করোনা টিকা নিলেন ভাঙ্গুড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ বাকি বিল্লাহ

করোনা টিকা নিলেন ভাঙ্গুড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ বাকি বিল্লাহ

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় টিকা নিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ বাকি বিল্লাহ এবং তার সহধর্মিণী মিলি আক্তার। আজ সোমবার বেলা ১১.৩০টায় ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাঁদের টিকা দেওয়া হয়। 

এর আগে মেয়র, ইউএনও, এসিল্যান্ড ও  উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য জনপ্রতিনিধিরা টিকা নিয়েছেন। তাদের কারো শরীরে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়নি।

টিকা নেওয়ার পর তাকে আধা ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। উপজেলা চেয়ারম্যান বাকি বিল্লাহ বলেন, টিকা যে নিলাম, সেটা টেরই পেলাম না। কোনো সমস্যা হচ্ছে না।

(৫ এপ্রিল) বেলা দুইটা পর্যন্ত ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  টিকা নেন ১৯ জন।

টিকা নিয়ে একটি গোষ্ঠী প্রথম থেকেই অপপ্রচার চালাচ্ছে উল্লেখ করে বাকি বিল্লাহ  বলেন, উপজেলা বাসীকে বলব, সরকারি নির্দেশনা মেনে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে টিকা নিন এবং টিকা নিতে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করুন।

Saturday, April 3, 2021

ঘোড়দৌড়ে উপস্থিত ২০ হাজার দর্শক, গাদাগাদি ভিড়ে মুখে নেই মাস্ক!

ঘোড়দৌড়ে উপস্থিত ২০ হাজার দর্শক, গাদাগাদি ভিড়ে মুখে নেই মাস্ক!

করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি ঠেকাতে ক্ষেত্রবিশেষে জনসমাগম সীমিত, নিষিদ্ধ এবং নিরুৎসাহিত করাসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে ১৮ দফা নির্দেশনা জারি করেছে সরকার। নির্দেশনা বাস্তবায়নে এরই মধ্যে প্রশাসনের কর্মকর্তারা হাট-বাজারে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছেন। এতে মাস্ক বিতরণসহ স্বাস্থ্যবিধি অবহেলা করায় অনেককে জরিমানা করা হচ্ছে। এরপরও সাধারণ মানুষ সচেতন হচ্ছে না। মাস্ক পড়াসহ সামাজিক দূরত্ব মানছেন না কেউ। এর মধ্যেই শুক্রবার বিকালে প্রায় ২০ হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে পাবনার ফরিদপুর উপজেলার দেওভোগ গ্রামে ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখানে স্বাস্থ্যবিধি তো দূরের কথা, গাদাগাদি ভিড়ে কারো মুখে ছিল না মাস্ক। 
kalerkantho
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার বৃলাহিড়ীবাড়ি ইউনিয়নের দেওভোগ গ্রামের শতাধিক বিঘা জমিতে রবিশস্য ফসল চাষাবাদ শেষে উন্মুক্ত রয়েছে। সেই উন্মুক্ত মাঠে গ্রামের একতা যুব সংঘ শুক্রবার ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এ আয়োজনে দুপুর থেকে ফরিদপুর উপজেলাসহ আশেপাশের উপজেলা থেকে হাজার হাজার মানুষ মাঠের চারপাশে এসে জড়ো হতে থাকেন। বিকাল ৪টার দিকে শুরু হয় প্রতিযোগিতা। জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে টাইগার, যুবরাজ, লালমনি, বীর বাহাদুর,পড়ি, মিঠন, তালুকার, বাংলার দুলদুল, কাজলী, অগ্রদূত, বাহাদুর, সাদামাটি, লাল গোলাপ, মামা-ভাইগ্না ও রঞ্জিত, জালালী, ইমু, সোনার ময়নাপাখি ও পবন নামে ৩০টি ঘোড়া প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। এদের মধ্যে বীর বাহাদুর নামে একটি ঘোড়া প্রথম স্থান অর্জন করে। ঘোড়ার সওয়ারকে ২১ ইঞ্চি এলইডি রঙিন টেলিভিশন পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হয়। মূল প্রতিযোগিতা দেখতে অন্তত ২০ হাজার দর্শক জড়ো হয়। তবে করণা সংক্রমণ বাড়লেও কারো মুখে ছিল না মাস্ক। প্রতিযোগিতা দেখতে দর্শনার্থীদের মধ্যে পুরো সময়় ধরে চলে ঠেলাঠেলি। 
kalerkantho
করোনার ঊর্ধ্বগতিতে এমন আয়োজনে হতবাক হয়েছেন গ্রামের অনেক সচেতন মানুষ। গ্রামবাসীর মতে,  আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে খামখেয়ালি করে এই ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে যুবকরা। যা করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে।
এ বিষয়ে কথা বলতে একাধিক আয়োজকের মোবাইল ফোনে কল করলেও তারা রিসিভ করেননি।
সোমবার থেকে সারা দেশে ১ সপ্তাহের লকডাউন | ভাঙ্গুড়ার আলো

সোমবার থেকে সারা দেশে ১ সপ্তাহের লকডাউন | ভাঙ্গুড়ার আলো

 

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আগামী সোমবার (৫ এপ্রিল) থেকে এক সপ্তাহের লকডাউনে যাচ্ছে সারা দেশ।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আজ শনিবার (৩ এপ্রিল) এ তথ্য জানিয়েছেন। নিজের সরকারি বাসভবনে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তিনি।
ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে আগামী সোমবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য সারা দেশে লকডাউন ঘোষণা করতে যাচ্ছে সরকার। করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।
এদিকে, একই তথ্য জানিয়েছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। আজ শনিবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে তিনি বলেন, 'করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে এক সাপ্তহের জন্য সারা দেশে লকডাউনে যাচ্ছে সরকার।' তবে শিল্প কলকারখানা খোলা থাকবে এবং সেগুলোতে শিফটিং ডিউটি চলবে বলে জানান তিনি। 

Friday, April 2, 2021

পাবনায় ট্রাকচাপায় বাবা-মেয়ে নিহত

পাবনায় ট্রাকচাপায় বাবা-মেয়ে নিহত

পাবনা সদর উপজেলার তারাবাড়িয়া বাজার এলাকায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী বাবা-মেয়ে নিহত হয়েছেন।

আজ শুক্রবার (০২ এপ্রিল) সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত একজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ।

নিহতরা হলেন সদর উপজেলার দোগাছি ইউনিয়নের চর আশুতোষপুর গ্রামের সেলিম মোল্লার ছেলে আলমগীর হোসেন (৩৬) ও তার মেয়ে সিনহা (৬)। আহত হয়েছেন আলমগীর হোসেনের স্ত্রী নাসরিন আক্তার (৩০)।

ওসি নাছিম আহম্মেদ জানান, পাবনা থেকে মোটরসাইকেলে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে সুজানগরের দিকে যাচ্ছিলেন আলমগীর হোসেন। পথিমধ্যে তারাবাড়িয়া বাজার এলাকার কাছে রাস্তার পাশে মোটরসাইকেল থামিয়ে মোবাইলফোনে কথা বলছিলেন তিনি।

এ সময় বালু পরিবহন করা একটি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট ১৮-৯৭১৪) পেছন থেকে তাদের মোটরসাইকেলকে সজোরে ধাক্কা দেয়।

এতে ঘটনাস্থলেই বাবা আলমগীর ও মেয়ে সিনহা মারা যায়। পরে গুরুতর আহত নাসরিন খাতুনকে উদ্ধার করে সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায় স্থানীয়রা।

সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ সময় পালিয়ে যায় ট্রাকের চালক-হেলপার। পরে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ট্রাকটিতে ভাঙচুর চালায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছ মরদেহ উদ্ধার করে।